রাত পোহালেই রদবদল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার। কারা থাকছেন? নতুন কারা? Exclusive


নজরবন্দিঃ বড়সড় রদবদল হতে চলেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায়। রবিবার সকাল দশটায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার সম্ভাব্য রদবদল করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সূত্র বলছে, রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের প্রক্রিয়া চালু হয়ে গিয়েছে। ২০১৪ সালের মে মাসে কেন্দ্রে সরকার গড়ার পর থেকে এই নিয়ে তৃতীয়বার ক্যাবিনেটে পরিবর্তন করছেন প্রধানমন্ত্রী।
img_2017-09-02_16-49-17
কিন্তু কেন আবার রদবদল? সূত্র বলছে কিছু দিনের মধ্যেই কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা ভোট। তারপরেই রয়েছে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচন। বিজেপি সেই নির্বাচনে সর্বশক্তি নিয়ে নামতে চায়, নিরঙ্কুশ সংখ্যা গোরিষ্ঠতা শুধু নয় প্রত্যেক ভারতবাসি-র কাছে সরকারের গ্রহন যোগ্যতা বাড়ানোও লক্ষ। আর সে কথা মাথায় রেখেই মন্ত্রীসভা ঢেলে সাজার পথে হাঁটছেন মোদি।
১) বেঙ্কাইয়া নাইডু মন্ত্রীত্ব ছেড়ে উপরাষ্ট্রপতি হয়েছেন। ২) কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী অনিল দাভের মৃত্যুর পর সেই মন্ত্রকের বাড়তি দায়িত্ব সামলাচ্ছেন হর্ষবর্ধন।
সুতরাং বেঙ্কাইয়া, দাভের মন্ত্রকগুলি খালি রয়েছে।
৩) বিরোধী শিবির ছেড়ে আরও একবার এনডিএ-তে যোগ দিয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। তার দল জেডিইউ থেকেও একজন বা দুজন কে মন্ত্রী করার কথা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছেনা!

উল্লেক্ষ্য, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার একাধিক মন্ত্রী ইস্তফা দেন। ইস্তফা দেন রাজীব প্রতাপ রুডি, উমা ভারতী, সঞ্জীব বালিয়ান, ফগ্গন সিংহ কুলস্তে, মহেন্দ্র পাণ্ডে। যদিও উমা ভারতীর ইস্তফা গ্রহন করেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কলরাজ মিশ্র, সঞ্জীব বালিয়ান, গিরিরাজ সিংহ, নির্মলা সীতারমণ, মহেন্দ্র নাথ পাণ্ডে ও ফগ্গন সিংহ কুলস্তের পদত্যাগপত্র জমা নিয়েছেন অমিত শাহ। এদের মধ্যে মহেন্দ্র পাণ্ডেকে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সভাপতি করা হয়েছে। কলরাজ মিশ্র হতে পারেন বিহারের রাজ্যপাল। বাকিদের সংগঠনের দায়িত্বে আনা হবে।
সূত্রের খবর রেলমন্ত্রক পেতে পারেন নীতীন গড়করি।
সামনে ভোট তার আগে কর্ণাটক ও হিমাচল থেকে দু-এক জন কে মন্ত্রিসভায় সুযোগ দেওয়ার সম্ভাবনা ও রয়েছে।
অন্যদিকে অমিত শাহ, স্মৃতি ইরানি রাজ্যসভায় জিতে এসেছেন। অমিত শাহ কেও দেওয়া হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রক এই জল্পনা থাকলেও বিশেষ সূত্রের খবর মন্ত্রী হচ্ছেন না তিনি। স্মৃতি ইরানি সম্ভবত বহাল থাকছেন তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রকে। কারন তার পারফর্মেন্স বেশ আশাপ্রদ বলে খবর। জল্পনা ছিল তাকে সরানো হতে পারে কিন্তু একেবারে শেষ মূহুর্তের খবর প্রধানমন্ত্রী ভরশা রাখছেন স্মৃতির উপরেই, কারন একাধিক মহল স্মৃতি ইরানির পারফর্মেন্সে খুশি। তবে বস্ত্র(টেক্সটাইল) মন্ত্রক টি তার হাত থেকে নিয়ে নেওয়া হতে পারে বলে খবর নির্ভরযোগ্য সূত্রে।
বাকিটা বোঝা যাবে রাত পোহালেই। জানা যাবে কারা থাকছেন আর কারাই বা নতুন মুখ!


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*