রূপকথার ক্রিকেট! ভারতীয় নারীশক্তির জয়। পোস্ট এডিট…

অরুনাভ সেনঃ মনে পড়ে গেলো ৮৩ সালের কথা,কার্যত আন্ডারডগ হয়ে সেদিন ক্রিকেটের দৈত্য ওয়েষ্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করে প্রথমবারের মত কপিলদেবের হাত ধরে বিশ্বকাপ জেতে ভারতীয় দল,

তারপরে ভারতীয় দল অনেক ট্রফি জিতেছে,কিন্তু সেদিনের জয় ভারতীয় ক্রিকেটে মাইলস্টোন৷২০জুলাই ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা মনে রাখবেন ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অনবদ্য জয় কে৷রূপকথার ক্রিকেট খেললেন হরমনপ্রীত কাউর৷কার্যত একার হাতে মহিলা ক্রিকেটের দৈত্যদের ব্যাকফুটে ফেলে দিলেন ১১৫ বলে ১৭১ রানের অমর ইনিংস খেলে৷ভারত অবশ্য আন্ডারডগ হিসেবেই সেমিফাইনাল খেলতে নেমেছিলো,অল্পরানে দুই উইকেট খুইয়ে ভারত খেলার থেকে রাশ হারায়নি বরং পাল্টা লড়াই শুরু করেন মিতালি রাজ আর হরমনপ্রীত কাউর৷মিতালি আউট হতেই খোলস ছেড়ে বের হলেন হরমনপ্রীত৷অজিদের কোনও বোলারকে রেয়াত করেন নি,চমকপ্রদ ইনিংস,যা সত্যিই যেন মণিমানিক্যে ভরা,চোখে যারা না দেখেছেন,অথবা টিভির পর্দায় যারা চোখ রাখতে পারেন নি তারা বোধহয় হরমনপ্রীত কাউরের মণিমানিক্যে ভরা ইনিংসটি না দেখতে পেয়ে এখন হাত পা কামড়াচ্ছেন৷ভারতের বিশাল রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে অজি শিবিরে জোরালো ধাক্কা দিলেন ভারতীয় পেসাররা৷দ্রুত তিন উইকেট খোয়ানোর পরে অজিরা কিছুটা পাল্টা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করলেও নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট পড়ায় যখন মনে হচ্ছিল ভারতের জয় স্রেফ সময়ের অপেক্ষা,তখনই ভারতীয় শিবিরে পাল্টা আঘাত হানলেন ব্লাকওয়েল,অনবদ্য ব্যাটিং করে বুঝিয়ে দিলেন অজি ব্যাটিং লাইনআপ কেন শক্তিশালী৷যদিও তার লড়াই অষ্ট্রেলিয়াকে জয়ের সন্ধান দিতে পারিনি,বরং ৩৬ রানে ভারতের কাছে হেরে এবারের মত বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হল অষ্ট্রেলিয়াকে৷আসলে ভারত টিম হিসেবে খেলেছে,দলীয় সংহতির জয়,আগ্রাসন দেখাচ্ছে আর দেশবাসী চান এই আগ্রাসনটা ফাইনালের জন্য তোলা থাক,ফাইনালে প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ইংল্যান্ড৷তাদের কে হারিয়ে প্রথমবারের জন্য আইসিসির বিশ্বকাপ ট্রফি চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে ফিরুন মিতালি এন্ড কোং৷একশ তিরিশ কোটির দেশ ভারতের আবালবৃদ্ধ বনিতার এটাই স্বপ্ন,মিতালিদের কাছে এটাই দাবি৷

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*